শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৬:৫৪ অপরাহ্ন

রংপুর মহানগরীর বস্তিগুলোর ৬৭ ভাগ শিশু স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে

রংপুর মহানগরীর বস্তিগুলোর ৬৭ ভাগ শিশু স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে

স্টাফ করেসপনডেন্ট, রংপুর।। বাতায়ন২৪ডটকম।।

রংপুর সিটি করপোরেশন এলাকার বস্তিগুলোর ১ থেকে ৫ বছর বয়সি শিশুদের ৬৭ ভাগ শিশুই স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে। এরা সবাই ভুগছেন অপুস্টিতে। এছাড়া বয়স ও উচ্চতা বিবেচনায় রয়েছে বেশি ওজনের শিশুর সংখ্যা। এরমধ্যে ছেলে শিশুর তুলনায় কণ্যা শিশুর স্বাস্থ্যঝূকির সংখ্যা বেশি।

সোমবার ( ১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নগরভবনের সভা কক্ষে ‘অনুর্ধ্ব ৫ বছর বয়সী শিশুদের পুষ্টিহীনতা যাচাই’ এর ফলাফল অবহিতকরণ সভায় এসব তথ্য জানান রংপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কামরুজ্জামান ইবনে তাজ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমীন মিঞা, সচিব উম্মে ফাতিমা, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডাঃ পলাশ কুমার রায়, মেডিতেল অফিসার ডাঃ সাদিয়া আফরিন সন্ধি, মেডিকেল অফিসার ডাঃ সুতপা দেব ও স্যানিটারী ইন্সপেক্টর মোঃ আব্দুল কাইয়ুম প্রমুখ।

সভায় রংপুর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কামরুজ্জামান ইবনে তাজ জানান, চলতি বছরের ৫ জুন থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত ইউনিসেফের সেভ দ্যা চিলড্রেনের সহযোগিতায় অনুর্ধ্ব ৫ বছর বয়সী শিশুদের নিয়ে জরিপ কার্যক্রম চালানো হয়। নগর ভবনের স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসা সেবা গ্রহীতাসহ নগরীর বিভিন্ন বস্তি এলাকার ৪ হাজার ৪০৬ জন শিশুকে নিয়ে এ জরিপ কার্যক্রম পরিচালিত হয়। এতে ৩৮ দশমিক ৬০ ভাগ শিশু অপুষ্টির শিকার, ২৮ দশমিক ৩৬ ভাগ শিশু ওজনে বেশি এবং ৩৩ দশমিক ০৪ ভাগ শিশু স্বাভাবিক শিশু হিসেবে চিহ্নিত হয়। এছাড়া ৭২জন মারাত্মক অপুষ্টিতে ভোগা শিশু চিহ্নিত করা হয়। এসব শিশুর সুস্থতায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে।

ডা. কামরুজ্জামান ইবনে তাজ জানান,  সিটি কর্পোরেশনের এ জরিপ থেকে প্রতীয়মান হয় যে নগরীর বস্তি এলাকায় ৫ বছরের নিচের শিশুদের শারীরিক অবস্থা ভাল নেই। তাদের অধিকাংশ অপুষ্টি কিংবা বেশি ওজন হওয়ায় স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে। এছাড়া ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা বেশি অপুষ্টিতে ভুগছে। শিশুরা জেন্ডার বৈষম্যের শিকার হওয়ার কারণে এই অবস্থা বিরাজ করচে।

ডা. তাজ আরও বলেন, নগরীর ৩০০ জন অভিভাবকের উপর শিশুর পুষ্টিকর খাবার প্রদানের বিষয়টি নিয়ে জরিপ করা হলে, তারা বেশির ভাগই এসব বিষয়ে জানেন না বলে তথ্য উঠে এসেছে। তবে জরিপের শুরু এবং শেষে শিশুর অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি পেয়েছে।#

বাতায়ন২৪ডটকম।।সমামা

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved 2022 batayon24
Design & Developed BY ThemesBazar.Com